Menu

আহমদী ছাত্রদের মোবাইল ফোন ও ফেসবুক ব্যবহারে হুযুরের নির্দেশনা

উমুরে তোলাবা বিভাগ, মজলিস খোদ্দামুল আহমদীয়া, বাংলাদেশ হতে মোবাইল এবং ফেসবুক এর ব্যবহার বিষয়ে হুযুরের বিভিন্ন নির্দেশনা একসাথে করে মোহতরম সদর সাহেবের নির্দেশে নিম্নোক্তভাবে একটি সার্কুলার জারী করা হয়।
——————————————————————————————————-

বিষয়ঃ আহমদী ছাত্রদের মোবাইল ফোন ব্যবহারে সতর্কতা ও ফেসবুক ব্যবহারে হুযুরের নির্দেশনা প্রসঙ্গে ।

প্রিয় ভ্রাতা,

আসসালামু আল আইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ। আশা করি মহান আল্লাহর ফজলে ভালো আছেন।

সাম্প্রতিক সময়ে আহমদী ছাত্রদের (খোদ্দাম/আতফাল) মাঝে মোবাইল ফোন বিশেষত স্মার্ট ফোন ব্যবহারে অসতর্কতা পরিলক্ষিত হচ্ছে। ছাত্ররা মোবাইল ফোনে অযথা কথা বলে সময় নষ্ট করছে যে সময়টা তাদের দেয়া উচিত পড়াশুনাতে। যেভাবে আমাদের বর্তমান হুযুর (আইঃ) মজলিস খোদ্দামুল আহমদীয়া, জার্মানির বার্ষিক ইজতেমা ২০১১ তে এক ভাষণে মোবাইল ফোনের ব্যবহার সম্পর্কে বলেন, “বর্তমানে ছেলে মেয়েদের মাঝে একটি ব্যাধি দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে। আর তা হল, তারা বাবা-মায়ের কাছে মোবাইল কিনে দেয়ার দাবি করে। যদি জিজ্ঞেস করা হয় তুমি এমন কোন ব্যাবসা করছ যে তোমার ফোনে কথা বলতে হয়? ফোনের মাধ্যমেও বদভ্যাস তৈরী হয়। অনেক সময় দুষ্ট অচেনা মানুষ ফোনের মাধ্যমে যোগাযোগ করে ও তাদের প্রলোভনে উঠতি বয়সের ছেলে মেয়েরা প্রলুব্ধ হয়। ফলে তারা অজ্ঞাতভাবে বিভিন্ন পাপে জড়িয়ে পড়ে।”

৩১ শে ডিসেম্বর ২০১০ এর জুম্মার খুতবায় হুযুর ফেসবুক সম্বন্ধে বলেন, “কিছুদিন পূর্বে আমি জামাতের সদস্যদের ফেসবুক ব্যবহারে অনুৎসাহিত করেছিলাম, এতে অনিষ্ট রয়েছে। … কারন এর ক্ষতিকর দিক অনেক বেশি, উপকারী দিক কম।” ছাত্রদের ফেসবুক ও ফোনে সময় নষ্ট করা উচিত নয়; বরং সে সময় পড়াশোনাতে মননিবেশ করা উচিত। হুযুররের নির্দেশকে মান্য করে তা হতে বরকতের ভাগীদার হউন। সকল খোদ্দাম-আতফাল ও আহমদী পিতা-মাতার এ বিষয়ে সদয় দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। সাধারণ সভাতে এই সার্কুলারটি পড়ে শোনানোর ও এই দুটি বিষয়ে সকলকে বোঝানোর অনুরোধ করা হল ।

মহান আল্লাহ আমাদের হাফেজ, নাসের ও হাদী হউন। আমীন। ওয়াসসালাম।
খাকসার,

মোহতামীম উমুরে তোলাবা
মজলিস খোদ্দামুল আহমদীয়া, বাংলাদেশ।